গভার্নিং বোর্ড

লরেন্সিয়া অ্যাডামস একজন গ্রামীণ সমাজবিদ। তিনি ঘানা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এন্ট্রাপ্রেনোরিয়াল ম্যানেজমেন্ট বিষয়ে এমবিএ ডিগ্রি লাভ করেন। তিনি প্যান আফ্রিকান অর্গানাইজেশন ফর সাসটেইনেবল ডেভলপমেন্ট [পিওএসডেভ]-এর কার্যনির্বাহী পরিচালক এবং ঘানা রিসার্চ অ্যান্ড অ্যাডভোকেসি প্রোগ্রামের টিম লিডার। তিনি ২০ বছরেরও বেশি সময় ধরে জাতীয় ও দাতাসংস্থাগুলোর সাথে ছোটো ও মাঝারি উদ্যোগ, এনজিও এবং সামাজিক সংস্থাগুলোর সামাজিক দায়িত্ব নিয়ে কাজ করেছেন। তিনি একজন জেন্ডার বিশেষজ্ঞ এবং তিনি ইউএসএইড, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন, সিআইডিএ, ডিএএনআইডিএ, ওয়ার্ল্ড ব্যাংক প্রভৃতি সংস্থার অনুদান বণ্টনের কাজে অভিজ্ঞ।

সাইমন স্বাইডেন সুইস এজেন্সি ফর ডেভলপমেন্ট অ্যান্ড কো-অপারেশন [এসডিসি] এর গ্লোবাল প্রোগ্রাম ফর ফুড সিকিউরিটি-এর যুগ্ম-প্রধান। তিনি কৃষি, খাদ্য-নিশ্চয়তা, পুষ্টি প্রভৃতি বিষয়ে আন্তর্জাতিক নীতি নির্ধারক হিসেবে কাজ করেন। এ ছাড়াও তিনি আফ্রিকা ও এশিয়ার ক্ষুদ্র কৃষিখামারগুলোর জন্য পরিচালিত এসডিসি'র একাধিক প্রকল্পের দায়িত্বে নিয়োজিত। তিনি সুইজারল্যান্ডের বের্ন ইউনিভার্সিটি অব অ্যাপ্লায়েড সায়েন্স থেকে কৃষিবিদ্যায় বিএসসি ডিগ্রি লাভ করেন এবং পরবর্তীসময়ে তিনি নিউ ইয়র্কের কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রিসোর্স ইকোনমিক্সে এমএসসি ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি ২০০৩ সালে এসডিসিতে যোগদান করেন। এর পর থেকে তিনি নিকারাগুয়া, বেনিন এবং সুইজারল্যান্ডের বার্নে এসডিসির সদরদপ্তরে খাদ্য-নিরাপত্তা নিয়ে কাজ করছেন।

রাশেদা কে. চৌধুরী ক্যাম্পেইন ফর পপুলার এডুকেশন [ক্যাম্পে]-এর নির্বাহী পরিচালক। ‘ক্যাম্পে’ শিক্ষার সাথে যুক্ত কয়েক হাজার এনজিও, গবেষক, গণশিক্ষা নিয়ে কাজ করে এমন জনগোষ্ঠীকে নিয়ে গড়ে ওঠা একটি জোট। তিনি বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ডেভলপমেন্ট স্টাডিজ [বিআইডিএস]-এর একজন সিনিয়র ফেলো এবং ইনস্টিটিউট অব ইনক্লুসিভ ডেভলপমেন্ট [ইনএম]-এর কার্যনির্বাহী কমিটির একজন সদস্য। তিনি সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ [সিপিডি]-এর ট্রাস্টি বোর্ডের একজন সদস্য ; সিপিডি একটি স্বাধীন সংস্থা, যারা উন্নয়নশীল দেশের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলোর ওপর প্রতিনিয়ত নজর রাখে। এছাড়াও তিনি জাতীয় এবং বৈশ্বিক পরিমণ্ডলে শিক্ষার অধিকার এবং জেন্ডার জাস্টিজ প্রভৃতি বিষয়ের একজন নিয়মিত বক্তা।

ডমিনিক হাউনকুন্নো একজন কৃষিবিদ। তিনি বেলজিয়ামের জেমব্লু থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। এবং তিনি ওয়্যাগেনিঙ্গেন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজবিজ্ঞানে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন। তিনি কৃষিসম্প্রসারণের জন্য বেনিনে ১০ বছর, সিটিএ’-তে [কৃষি ও গ্রামীণ সহযোগিতার জন্য এসিপি-ইউ কেন্দ্র] ১২ বছর কাজ করেন। বর্তমানে তিনি আঞ্চলিক উন্নয়নের একজন পরামর্শক হিসেবে কাজ করছেন তাঁরই কয়েকজন বন্ধুকে নিয়ে গড়ে তোলা Berceauxd’ Afrique foundation-এর মাধ্যমে। এই সংস্থাটি আঞ্চলিক উন্নয়নে সহযোগিতা করে থাকে। তিনি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করেন যে, আফ্রিকার ভবিষ্যৎ নির্ভর করে, বড়ো ধরনের সম্প্রসারণে সহযোগী সংস্থাগুলো এবং নেতৃবৃন্দ কতটা দক্ষতার সাথে আঞ্চলিক উন্নয়ন করতে পারে তার ওপর। ডমিনিক অ্যাক্সেস অ্যাগ্রিকালচারের ভাইস চেয়ারম্যান

ডেভিড এনগুজি প্রাণিচিকিৎসা নিয়ে নাইরোবি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেন। প্রথম জীবনে তিনি কেনিয়ায় সাত বছর সরকারি চাকরি করেনে। সেখানে তিনি জেলা প্রশাসকের [বর্তমানে কাউন্টি] পদে উন্নীত হন। এরপর দীর্ঘ ২৫ বছর তিনি বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থার হয়ে কাজ করেছেন। তিনি প্রাণিসম্পদের উন্নয়ন ঘটিয়ে গ্রাম এলাকায় খাদ্যের জোগান বাড়ানো, খাদ্য-নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এবং দারিদ্র্য দূরিকরণে কাজ করছেন। তিনি পুরো পূর্ব-আফ্রিকাজুড়ে কৃষিশিল্পের বিপণন এবং ব্যবস্থাপনায় দক্ষ একজন ব্যক্তি।

মেরি কামাউ বোর্ড অফ দ্য আফ্রিকান ফোরাম ফর অ্যাগ্রিকালচারাল অ্যাডভাইসরি সার্ভিসেস [এএফএএএস]-এর চেয়ারপার্সন এবং গ্লোবাল ফোরাম ফর রুরাল অ্যাডভাইসারি সার্ভিসেস-এর পরিচালনা কমিটির সদস্যা। ১৯৮০ সাল থেকে তিনি কৃষিসম্প্রসারণে কাজ করে চলেছেন এবং মাত্র কিছুদিন আগে ডিরেক্টর অব এক্সটেনশন সার্ভিসেস অ্যান্ড ট্রেনিং-এর পদ থেকে অবসরগ্রহণ করেন। তিনি কেনিয়ার ন্যাশনাল অ্যাগ্রিকালচারাল সেক্টর এক্সটেনশন পলিসি এবং ন্যাশনাল অ্যাগ্রিকালচার রিসার্চ সিস্টেম গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। তিনি শহর ও শহরতলির কৃষিকাজ এবং যুবসম্প্রদায়কে কৃষিব্যবসার জন্য অনুপ্রাণিত করতে আগ্রহী। তিনি অ্যাক্সেস অ্যাগ্রিকালচারের উপ-সভাপতি

আলফান এনজেরু একজন অ্যাকাউন্টেন্ট, ম্যানেজমেন্ট কনসালটেন্ট এবং সরকারি ও বেসরকারি সংস্থায় ফিনান্সিয়াল ম্যানেজমেন্ট, প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট, অডিট অ্যান্ড রিস্ক ম্যানেজমেন্ট, করপোরেট গভর্নেন্স, ক্যাপাসিটি বিল্ডিং, অ্যাসুরেন্স সার্ভিসেস প্রভৃতি ক্ষেত্রের একজন বিশেষজ্ঞ ব্যক্তি। তিনি দীর্ঘ ৩৬ বছর বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ কনসাল্টিং এবং অডিটিং ফার্ম প্রাইসওয়াটারহাউজ কুপার্সে কাজ করেন। পিডাব্লিউসি থেকে অবসর নেওয়ার পর তিনি বিভিন্ন কোম্পানি ও স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার পরিচালনা পর্ষদে যোগ দেন। এছাড়াও তিনি বিভিন্ন পর্ষদের অডিট অ্যান্ড রিস্ক ম্যানেজমেন্ট কমিটির সভ্য। মি. এনজেরু অ্যাক্সেস অ্যাগ্রিকালচার-এর কোষাধ্যক্ষ

Categories

Designed & Built by Adaptive - The Drupal Specialists