<<90000000>> দর্শক
<<240>> উদ্যোক্তা 17টি দেশে
<<4135>> টি কৃষিবাস্তুবিদ্যা ভিডিও
<<105>> ভাষা উপলব্ধ

ব্যবসা বৃদ্ধি এবং কৃষকদের সহায়তা করার জন্য একটি উদ্ভাবনী ধারণা

উসমান মজিদের ক্ষেত্রে আমরা “অপরিহার্যতা উদ্ভাবনের জননী” - বা বরং "স্মার্টনেস" - এই কথার সত্যতাটি সহজেই দেখতে পাই। মজিদ একজন তরুণ ভিডিও ব্যবসায়ী, স্থানীয় লোকজন তাঁকে ডিজে নামে চেনে, তিনি মালাউইয়ের উপকণ্ঠে ছোট্ট শহর নাথেনজে-তে থাকেন। তিনি অন্য ডিজেদের মতো নয়, ওসমান দ্রুত তাঁর ব্যবসা বাড়িয়েছেন এবং কৃষক-প্রশিক্ষণ ভিডিওগুলো দেখিয়ে এবং কৃষকদের ফোনে সেগুলো শেয়ার করে নতুন গ্রাহক তৈরি করেছেন। 

 

ওসমান মজিদ বলেন, “আমি যখন প্রশিক্ষণ ভিডিওগুলো দেখাই তখন কৃষকেরা সেগুলো দেখার জন্য টাকা দেয় এবং বেশিরভাগ ভিডিও চিচেওয়া ভাষায় অনুবাদ করা বলে তারা সেগুলো দেখতে চায়। কেননা, আমরা এখানে চিচেওয়া ভাষায় কথা বলি।” ওসমান মজিদ আরও বলেন, “কৃষকেরা যখন তাদের ফোনে ভিডিও অনুলিপি  করতে আগ্রহ দেখায় তখন আমি তাদের আমার ভিডিও বার্নিং সেন্টারে পাঠাই যেখানে তারা ফোনে ভিডিওগুলো অনুলিপি করার জন্য টাকা দেয়।” 

 

যারা নিজেদের পরিবার ও বন্ধুদের সাথে সন্ধ্যায় ভিডিও দেখেন, স্থানীয় ডিজেরা তাদের ভিডিও বার্নিং সেন্টারে সেইসব গ্রাহকদের সেল ফোনগুলোতে এবং ডিভিডিগুলোতে সাধারণত সিনেমা ও গানের ভিডিওগুলো আপলোড করে দেন। 

 

ওসমান দক্ষিণ মালউইয়ের ৯৫ জন ডিজের মধ্যে একজন, যিনি ২০১৫ সালে ইংরেজি ও মালাউইয়ের (চিচেওয়া, নায়াঞ্জা, ইয়াও, সেনা ও তুম্বুকা) বিভিন্ন ভাষায় অ্যাকসেস এগ্রিকালচার (www.accessagriculture.org/bgl) - এর কৃষক-প্রশিক্ষণ ভিডিও-র একটি ডিভিডি সেট পেয়েছিলেন এবং এই ভিডিওগুলো কৃষকদের কাছে বিক্রি করতে তাকে উৎসাহিত করা হয়েছিল। ওসমান বলেন, “এখানে একমাত্র আমিই কৃষক-প্রশিক্ষণ ভিডিওগুলো বিক্রি করি, তাই লোকেরা ভিডিও সংগ্রহ করতে দূর দূরান্ত থেকে আসে।”  

 

এই প্রশিক্ষণ ভিডিওগুলোর ব্যাপারে কৃষকদের ক্রমবর্ধমান আগ্রহ দেখে ওসমান নাথেনজে এবং এর আশেপাশের এলাকায় ভিডিওগুলো দেখানোর একটি ব্যবসায়িক উদ্ভাবনী প্রস্তাব নিয়ে ২০১৯ সালে ঘোষিত অ্যাকসেস এগ্রিকালচার ইয়াং এন্টারপ্রেনার চ্যালেঞ্জ ফান্ড-এর আহ্বানে সাড়া দেন। ‘এন্টারপ্রেনার ফর রুরাল অ্যাকসেস’ (ইআরএ)-এর ছয় জন বিজয়ীর মধ্যে ওসমান একজন। পুরস্কার হিসেবে তাঁকে সৌর চালিত একটি স্মার্ট প্রজেক্টর দেওয়া হয়, যার মধ্যে অ্যাকসেস এগ্রিকালচার কৃষক-প্রশিক্ষণ ভিডিওগুলো ছিল।  

 

ওসমান বলেন যে, কোভিড-১৯ মহামারির আতঙ্কের মধ্যেও গত বছর তিনি দুই হাজারের বেশি লোককে ৮০টি প্রশিক্ষণ ভিডিও দেখাতে পেরেছেন এবং কৃষকদের মধ্যে ভিডিও-র কপি সংগ্রহের অনুরোধকারী গ্রাহকের সংখ্যাও যথেষ্ট বেড়েছে। “স্মার্ট প্রজেক্টরের মাধ্যমে এখন বিদ্যুৎ নেই এমন গ্রামগুলোতেও ভিডিও দেখানো সহজ।”

 

তাঁর মতে, কৃষকদের দেখানো এবং শেয়ার করা উভয় ক্ষেত্রেই সবচেয়ে জনপ্রিয় ভিডিওগুলো হলো:

 

ওসমান খুব খুশি যে, তিনি পাট্টা নামক গ্রামে ‘ঘরে দই বানানো’র ভিডিওটি দেখানোর পর ওই গ্রামের লোকেরা দই তৈরি করতে শেখে এবং তারা দইয়ের ব্যবসা শুরু করে। “তাদের বেশিরভাগই দই বানাতে জানত না। তবে, এখন ভিডিও দেখার পরে তারা দই বিক্রি করছেন।”

 

ওসমান আরও সন্তুষ্ট এ-কারণে যে, ভিডিওগুলো দেখে তার এলাকার কৃষকেরা বিভিন্ন দেশের কৃষি-কৌশল শিখছে। “এটি উৎসাহজনক যে, এগুলো দেখে তরুণ-তরুণীরা কৌশলগুলোর চর্চা করতে আগ্রহী হয়ে উঠছে। ভিডিও দেখে তারা যখন নানারকম প্রশ্ন করে তখন আমি তাদের জনগোষ্ঠীর সম্প্রসারণ কর্মকর্তাদের কাছে পাঠিয়ে দিই।”

 

ওসমান আরও অনেক ভিডিও চিচেওয়া বা নায়াঞ্জা ভাষায় অনুবাদ করতে চান। কেননা, তার এলাকার কৃষকদের কৃষিকাজ, খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ এবং উদ্যোক্তা সম্পর্কিত সবচেয়ে ভালো চর্চাগুলো সম্পর্কে জানা দরকার।

 

ওসমান জানান, “আমার খ্যাতি নাথেনজেতে অনেক জায়গায় ছড়িয়ে পড়েছে। আমি আশা করছি যে COVID-19 শেষ হবে যাতে আমি কভারেজ বাড়িয়ে তুলতে পারি।” জনগোষ্ঠীভিত্তিক প্রতিষ্ঠান, যেমন মালউইয়ের এগ্রিনেট এগ্রিকালচারের মতো এনজিও এবং এলাকা উন্নয়ন কমিটিগুলোর কাছ থেকে তিনি ক্রমবর্ধমানভাবে ভিডিও শেয়ারের অনুরোধ পাচ্ছেন।

 

স্থানীয় কর্তৃপক্ষের কাছেও তিনি তাঁর পরিসেবা চালু করেছেন, যারা তাঁকে কৃষক-প্রশিক্ষণ ভিডিওগুলো দেখানোর জন্য স্কুলের মতো সরকারি সুযোগ-সুবিধা নিখরচায় ব্যবহার করার অনুমতি দিয়েছেন। তিনি এখন 35 টিরও বেশি নতুন ইআরএদের পরামর্শ দিচ্ছেন, যারা সদ্য মালাভিতে নির্বাচিত হয়েছেন। 

 

ওসমানের উদাহরণ থেকে দেখা যায়, আফ্রিকার যুবকরা উদ্যোগী এবং ডিজিটাল প্রযুক্তিগুলির উত্সাহী ব্যবহারকারী এবং মানসম্মত পরামর্শদাতাদের জন্য ক্রমবর্ধমান চাহিদার প্রতিক্রিয়া জানাতে তারা ব্যস্ত। তাদের উদ্ভাবনী চেতনা গ্রামীণ বিকাশের প্রচারের জন্য মূল্যবান সেবা সরবরাহকারী হয়ে ও সুন্দর জীবনযাপনের একটি কার্যকর সুযোগ দিয়ে তাদের উপস্থাপিত হতে পারে।

আপনি কিভাবে সাহায্য করতে পারেন.. আপনার উদার সাহায্য আমাদের ক্ষুদ্র কৃষকদের কৃষি পরামর্শের জন্য তাদের ভাষায় আরও ভালভাবে পৌঁছাতে সক্ষম করবে।.

Latest News

অ্যাকসেস এগ্রিকালচার-এর নতুন ওয়েবসাইটে স্বাগত

কৃষিবিদ্যা এবং জৈবচাষাবাদের ওপর কৃষক প্রশিক্ষণ ভিডিওর বিশ্বের বৃহত্তম বহুভাষিক লাইবেরি অন্বেষণ করুন ব্রাসেলস, বেলজিয়াম — অ্যাকসেস এগ্রিকালচার তাদের

মিশরে অগ্রগামী কাজের জন্য অ্যাকসেস এগ্রিকালচার প্রশংসিত

সিজিআইআর, একটি বৈশ্বিক কৃষি-গবেষণা নেটওয়ার্ক, এর নির্বাহী ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডক্টর ইসমাহানে ইলাউফি মিশরের প্রত্যন্ত গ্রামীণ অঞ্চলে নারী ও তরুণ শ্রেণিসহ কৃষকদের কাছে পৌঁছানোর জন্য অ্যাকসেস এগ্রিকালচারের ভূয়সী প্রশংসা করেন।

লাইট ক্যামেরা অ্যাকশন ফিলিপাইনে অ্যাকসেস এগ্রিকালচার-শৈলীর ভিডিও নির্মাণ প্রশিক্ষণ

সম্প্রতি ফিলিপাইনের চারটি উন্নয়ন সংস্থার বারো জন অংশগ্রহণকারী দুই সপ্তাহের একটি ভিডিও নির্মাণ প্রশিক্ষণ কোর্সে অংশ নেন। প্রশিক্ষণে উচ্চমানের কৃষক-থেকে-কৃষক প্রশিক্ষণ ভিডিও নির্মাণের অত্যাবশ্যক দক্ষতাগুলো শেখানো হয়, যে-ভিডিওগুলো নির্মাণে গুণমান, বিষয়বস্তু এবং অ্যাকসেস এগ্রিকালচারের কঠোর মান মেনে চলতে হয়।

সাউথ আফ্রিকার তরুণ উদ্যোক্তারা স্মার্ট প্রযুক্তি বিষয়ে হাতে-কলমে প্রশিক্ষণ নিয়েছেন

সাউথ আফ্রিকার লিম্পোপো এবং ইস্টার্ন কেপ থেকে ইয়াং এন্টারপ্রেনর চ্যালেঞ্জ ফান্ড জয়ী চার জন গ্রামীণ তরুণ উদ্যোক্তাÑ তাদের মধ্যে দুই জন দুটি ইআরএ দল থেকে এবং দুই জন এককভাবে তিন দিনের একটি প্রশিক্ষণ কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন। ৩ থেকে ৫ অক্টোবর ২০২৩ তিনদিনব্যাপী ডিজিটাল সরঞ্জাম এবং টেকনোলজি বিষয়ে এই প্রশিক্ষণ কর্মশালাটি অনুষ্ঠিত হয় সাউথ আফ্রিকার পোলোকোয়ানে-তে।

সাম্প্রতিক ভিডিও

আমাদের স্পনসরদের ধন্যবাদ